ঢাকা, ২০ নভেম্বর, ২০১৯ || ৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬
Biz Barta :: বিজ বার্তা
Place your advertisement here

পণ্য রফতানির নগদ সহায়তায় আরো ৫ খাত

প্রকাশিত: ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  


দেশের রফতানি খাতকে উৎসাহিত করতে নগদ সহায়তার খাত ও হার বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

চলতি অর্থবছরে আইটিসহ ৫টি খাতকে নগদ সহায়তার আওতায় নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি আলু, হোগলা-ছোবড়া ও পাটজাত চূড়ান্ত দ্রব্যে নগদ সহায়তার হার বাড়ানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগ এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ হতে সফটওয়্যার, আইটিইএস  ও হার্ডওয়্যার রফতানিতে ১০ শতাংশ, সিনথেটিক ও ফেব্রিক্সেও মিশ্রণে তৈরি পাদুকা রফতানিতে ১৫ শতাংশ, অ্যাকটিভ ফার্মাসিউটিক্যালস ইনগ্রিডিয়েন্টস রফতানিতে ২০ শতাংশ, অ্যাকুমুলেটের ব্যাটারি রফতানিতে ১৫ শতাংশ এবং নারিকেল ছোবড়ার আঁশ দ্বারা উৎপন্ন পণ্য রফতানিতে ২০ শতাংশ নগদ সহায়তা দেয়া হবে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে এসব পণ্য নগদ সহায়তার আওতায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে আরো বলা হয়, চলতি অর্থবছরে হোগলা, খড়, আখের ছোবড়া ইত্যাদি দিয়ে হাতের তৈরি পণ্য রফতানিতে নগদ সহায়তার হার ৫ শতাংশ বাড়িয়ে ২০ শতাংশ, আলু রফতানিতে ১০ শতাংশ বাড়িয়ে ২০ শতাংশ, সাভারে চামড়া শিল্প নগরীতে স্থানান্তরিত শিল্প প্রতিষ্ঠান হতে ক্রাস্ট ও ফিনিশড লেদার রফতানিতে ৫ শতাংশের পরিবর্তে ১০ শতাংশ এবং পাটজাত চূড়ান্ত দ্রব্য রফতানিতে সাড়ে ৭ শতাংশের পরিবর্তে ১০ শতাংশ নগদ সহায়তা দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

একইসঙ্গে দেশে উৎপাদিত কাগজ ও কাগজজাতীয় দ্রব্য রফতানিতে ১০ শতাংশ এবং আগর ও আতর রফতানিতে ২০ শতাংশ ভর্তুকি দেয়ার পূর্বের সিদ্ধান্ত বহাল রাখা হয়েছে।

এছাড়া গত অর্থবছরের প্রথমে ঘোষিত ২০টি পণ্যে নগদ সহায়তা অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। এসব পণ্য যে পরিমাণ রফতানি করবে তার মূল্যের বিপরীতে সর্বনিম্ন ২ শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ ২০ শতাংশ প্রণোদনা দেয়া হবে রফতানিকারকদের।


Place your advertisement here
Place your advertisement here
Place your advertisement here
Place your advertisement here