ঢাকা, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ || ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬
Biz Barta :: বিজ বার্তা
Place your advertisement here

‘পাঁচ বছরেই ডাবল ডিজিট প্রবৃদ্ধি’

প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  


বিজবার্তা রিপোর্ট : দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সব চেয়ে ভালো বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। বর্তমানে বাংলাদেশে জনমিতিক লভ্যাংশের ‘ডেমোগ্রাফিক ডেভিডেন্ট’ সুযোগ বিদ্যমান। আগামী ২০৩০ সাল পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকবে। এখন যেসব মেগা প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে, তা শেষ হলে বাড়বে জিডিপি’র প্রবৃদ্ধি। তাই আগামী পাঁচ বছরের মধ্যেই ডাবল ডিজিট প্রবৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হবে।


রোববার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘হার্নিসিং ব্লকচেইন টেকনোলজি ফর ডেভলপমেন্ট আনলিজিং দ্যা পোর্টেনসিয়াল অব বাংলাদেশ ফর ব্লকচেইন এপ্লিকেশনস’ বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন অর্থমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে এশিয় উন্নয়ন ব্যাংক, এডিবি ঢাকা মিশনের প্রধান মনমোহন প্রকাশ স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

অর্থমন্ত্রী মনে করেন, চীন, ভারত এবং এশিয়ার অন্যান্য ক্রমবর্ধমান অর্থনীতির মধ্যে বাংলাদেশ কৌশলগত ভৌগলিক অবস্থানে রয়েছে। ২০৩২ সালে পৃথিবীতে এক নম্বর দেশ হবে চীন, দুই নম্বর হবে আমেরিকা, তিন নম্বরে থাকবে ভারত। আর চার নম্বরে জাপান এবং পাচ নম্বরে থাকবে জার্মানী। চীন, ভারত ও জাপান এই তিনটি বৃহৎ অর্থনীতির দেশের মধ্যে অবস্থান করবে  বাংলাদেশ।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল আরো বলেন, উদ্ভাবনে গুরুত্ব দিতে হবে, সে জন্য নতুন প্রযুক্তি আনতে হবে।  চতুর্থ শিল্প বিপ্লব চলে এসেছে এই সময়ে রবোটিকস, আর্টিফিয়াল ইনটেলিজেন্স বায়োটেকনোলজি, ন্যানো টেকনোলজি ভুমিকা রাখবে। যেখানে ব্লকচেইন চতুর্থ শিল্প বিপ্লব ভুমিকা রাখবে। এর মাধ্যমে কিছু ক্ষেত্রে হয়তবা চাকুরি কমে যাবে, তবে আবার নতুন নতুন চাকুরির সুযোগ তৈরি হবে, মানবসম্পদ সমৃদ্ধ হবে। শিল্প খাতে দ্রুত উন্নতি আনতে হবে, জনমিতির সুবিধা নিতে হবে।

এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ বলেন, অর্থনৈতিক উন্নতি ও সামাজিক উন্নতি এখন বিশ্বে মডেল। বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৮ শতাংশ হবে। এছাড়া রেমিট্যান্স প্রবাহ বেশ ভাল। প্রতি বছর শ্রমশক্তিতে ২০ লাখ তরুণ যুক্ত হচ্ছে। জনমিতির সুবিধা নিতে পারলে উন্নতি আরো বেগবান হবে।


Place your advertisement here
Place your advertisement here
Place your advertisement here
Place your advertisement here